বৃষ্টিতে কেমন হবে পুজোর সাজ?

এবার পূজোয় মাঝে মাঝে অঝোর ধারা বৃষ্টি এসে আমাদের ভিজিয়ে দেবে। এই বৃষ্টি, এই কড়া রোদ। বাড়ি থেকে বের হলেন কড়া রোদ দেখে কিছু দূর যাওয়ার পর পড়লেন ঝুম বৃষ্টির কবলে। তখন ভাবুন তো অবস্থা! কিন্তু পুজোয় তো আর ঘরবন্দী হয়ে থাকা যায় না। আমাদের বের হতেই হবে আর তার সাথে করতে হবে মেকআপ।

কিন্তু এই আবহাওয়ায় মেকআপ ঠিক রাখাটা অনেক বেশি ঝামেলার। তাই সাজার সময় থাকতে হয় একটু বেশি সতর্ক। এই সময়টাতে মেকআপের জন্য ওয়াটারপ্রুফ (জল নিরোধক) উপকরণ ব্যবহার করা উচিত। বিশেষ করে ওয়াটারপ্রুফ মাশকারা, কাজল আর আইলাইনার ব্যবহার করাটা জরুরি। এই তিনটি প্রসাধনী যদি জলরোধী না হয়, তাহলে ভিজে গেলে পুরো সাজটাই নষ্ট হয়ে যাবে।

ফাউন্ডেশন ব্যবহারের ক্ষেত্রে ত্বকের রং অনুযায়ী ফাউন্ডেশন ব্যবহার করতে হবে। তবে ফাউন্ডেশন ব্যবহারের পূর্বে ভালো মানের কোনো প্রাইমার ব্যবহার করবেন। ফাউন্ডেশন ব্যবহারের আধ ঘণ্টা আগে প্রাইমার ব্যবহার করা উচিত। এতে করে ত্বকের সাথে খুব ভালো করে মেকআপ মিশে যায়। ঘেমে গেলেও মেকআপ মুছে যাওয়ার কোনো আশঙ্কা থাকে না।

প্রাইমারের পরিবর্তে আপনি চাইলে বিবি ক্রিমও ব্যবহার করতে পারেন। ফাউন্ডেশন লাগানোর পূর্বে বিবি ক্রিম লাগিয়ে নিন। তৈলাক্ত ত্বকের জন্য উপযোগী বিবি ক্রিম ব্যবহার করুন।

কিছু টিপস :

এ সময় মেকআপ হওয়া উচিত একটু উজ্জ্বল ধরনের। তবে খুব ভারি মেকআপ ব্যবহার না করাই ভালো।

ম্যাট লিপস্টিক ব্যবহার করতে পারেন। এ সময় গ্লোসি লিপস্টিক ব্যবহার করলে তা ভিজে ছড়িয়ে যাওয়ার সম্ভাবনা থাকে।

আইশ্যাডো ব্যবহারের ক্ষেত্রেও ম্যাট আইশ্যাডো বেছে নিতে পারেন। তবে দিনের বেলার সাজের ক্ষেত্রে বেজ রং এর আইশ্যাডো ব্যবহার করতে পারেন।

এই সময়ের সাজে উজ্জ্বল রংগুলো বেশ মানানসই। চোখের সাজে এবং ব্লাশঅন ব্যবহারের ক্ষেত্রে গোলাপি, কমলা, পিচ অথবা কপার (তামাটে) রং বেছে নিতে পারেন।

লিপস্টিকের ক্ষেত্রে হালকা লাল, কমলা, গোলাপি বেশ মানানসই।

বাইরে থেকে ফিরে অবশ্য্ই ভালোভাবে মেকআপ তুলে নেবেন।

এরপর একটি ভালো মানের ময়েশ্চারাইজার ব্যবহার করুন। কারণ বৃষ্টিভেজা এই সময়টাতে ত্বক হারায় আর্দ্রতা।

আর তাই সব ধরনের ত্বকের জন্যই প্রয়োজন ময়েশ্চারাইজার।

অন্য কোনো সময় না হলেও অন্তত রাতে অবশ্যই ময়েশ্চারাইজার লাগান।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

WhatsApp chat