২৪ ঘন্টার মধ্যে খুলে গেল সাইলি চাবাগান

মালবাজার: টানা ম্যারাথন বৈঠকের পর ২৪ ঘন্টার মধ্যে অবশেষে খুলে গেল মালবাজার মহকুমার সাইলি চাবাগান। গত বৃহস্পতিবার বোনাস নিয়ে অসন্তোষের কারনে বাগান ছেড়ে চলে যান চাবাগান কতৃপক্ষ। যার ফলে পুজোর মুখে বাগান বন্ধ হয়ে যাওয়ায় আতঙ্কিত হয়ে পড়েন শ্রমিকেরা। বৃহস্পতিবার সকাল থেকে চাবাগানের গেটে মিটিং করে শ্রমিক এবং শ্রমিক নেতারা।
এরপর বৃহস্পতিবার রাতে মালবাজার তৃণমূলের বিধায়কের কার্যালয়ে একটি বৈঠক অনুষ্ঠিত হয়। বৈঠকে উপস্থিত ছিলেন চা শ্রমিক,  শ্রমিক নেতারা, বিধায়ক বুলুচিক বড়াইক,  বাগান কতৃপক্ষ।  সেখানেই সিদ্ধান্ত হয় শ্রমিকদের ১৪% হারেই বোনাস দেওয়া হবে এবং শুক্রবার থেকে খুলে যাবে সাইলি চা বাগান।
তাই গতকালের বৈঠকের পর শুক্রবার খুলে গেল এই চা বাগান। যার ফলে সকাল থেকেই শ্রমিকেরা কাজে যোগদান করছে। পাশাপাশি ফ্যাক্টারিতেও উৎপাদন হচ্ছে চা। আর এতেই খুশি এই চা বাগানের প্রায় ১৫০০ চা শ্রমিক ও তাদের পরিবারের সদস্যরা। চা বাগানের ম্যানেজার  বসন্ত কুমার প্রধান বলেন গত বুধাবার চা বাগানের মহিলা শ্রমিকেরা আমাকে রাত পর্যন্ত ঘেরাও করে রাখে। সেই রাতে ঘটনা স্থলে এসেছিল মাল মহকুমা  পুলিশ আধিকারিক দেবাশিষ চক্রবর্তী, বিধায়ক বুলুচিক বড়াইক।
তারপর কোন সমস্যার সমাধান হয়নি। তাই নিরাপত্তার অভাব বোধ করায় উপর মহলের নির্দেশেই বাগান ছেড়ে চলে যেতে বাধ্য হই কিন্তু গত বৃহস্পতিবার রাতে বৈঠকের মাধ্যমে সমাধান সুত্র বের হয়। যার ফলে শুক্রবার সকাল থেকে খুলে যায় এই বাগান। শ্রমিকেরা কাজ করছে। শুক্রবার বিকেলেই শ্রমিকদের ১৪% হারে বোনাস দেওয়া হবে।
বিধায়ক বুলুচিক বড়াইক বলেন আলোচনার মাধ্যমে সমস্যা মিটে গেছে। শ্রমিকেরা ১৪% হারে বোনাস নিতে রাজি হয়েছে। সেই কারনে শুক্রবার সকাল থেকে খুলে গেছে এই চাবাগান। বাগানের শ্রমিক নেতা মহম্মদ হাবিব খান বলেন, বাগান খুলে যাওয়ায় খুশি শ্রমিকেরা। সকাল থেকে সবাই চাপাতা তুলছে বাগানে।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

WhatsApp chat